করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট

বিশ্বজুড়ে নোভেল করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা শুক্রবার এক লাখ ছাড়িয়েছে। সেইসঙ্গে দুনিয়াজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যাও ১৬ লাখে পৌঁছেছে। আক্রান্তের মধ্যে ৩ লাখের কাছাকাছি সেরেও উঠেছেন। গত আট দিনে মৃতের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। তার একটা বড় কারণ আমেরিকা, ফ্রান্স, ইতালি, স্পেন ও ব্রিটেনের মতো কয়েকটি দেশ।
আমেরিকায় শেষ চার দিনে প্রায় ৮ হাজার মানুষ করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন। ফ্রান্স ও ব্রিটেনেও গতকয়েক দিন ধরে গড়ে প্রায় হাজার জন করে মারা যাচ্ছেন। ইতালি ও স্পেনে অতিমারির প্রকোপ গত এক সপ্তাহে খানিক কমলেও, মৃত্যু রোজ ৫০০-৬০০ মধ্যে ঘোরাফেরা করছে।
জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি জানিয়েছে, গোটা বিশ্বে এই মুহূর্তে করোনায় মৃতের সংখ্যাটা ১ লাখ ১ হাজার ৭৬২। আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ১৬ লাখ ৮০ হাজারা ৪৮৯। সম্পূর্ণ সেরে উঠেছেন ৩ লাখ ৭৩ হাজার ৫৩৮।
করোনা মৃত্যুতে আমেরিকা ও ইতালির মধ্যে ফারাক কমে উনিশ আর বিশ। এতদিন ইতালিই মৃত্যুর শিখর ছুঁয়েছিল। গতকয়েক দিনে মৃত্যুর সেই হার নেমে এসেছে। উল্টো দিকে, আমেরিকায় গড়ে গতকয়েক দিনে রোজ ২ হাজার করে মানুষ মারা যাচ্ছেন। ফলে, আক্রান্তের সংখ্যার সঙ্গে মৃত্যুর শিখরেও উঠে আসছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। শুক্রবারও ১,৯০০ জন মারা গিয়েছেন ট্রাম্পের দেশে।
ইতালিতে মৃত্যু বেড়ে হয়েছে ১৮ হাজার ৮৪৯। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৫৭০ জন। একদিনে আরও ৩,৯৫১ আক্রান্ত বেড়ে সংখ্যাটা হয়েছে এক লাখ ৪৭ হাজার ৫৭৭। সেই হিসেবে ইতালির থেকে আমেরিকায় করোনায় মৃত্যুহার কম। কারণ, মার্কিন মুল্লুকে মোট ১৮ হাজার ০৩৪ মৃত্যু হলেও, আক্রান্তের সংখ্যা কয়েকগুণ বেশি। শুক্রবার রাত পর্যন্ত আমেরিকায় করোনা পজিটিভ ৪ লাখ ৮৯ হাজার ৬৪৬। স্পেনে মৃত্যু বেড়ে হয়েছে ১৫ হাজার ৯৭০। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ৫২৩ জন। অন্যদিকে, ব্রিটেনে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতের হিসেবে আরও ৯৮০ যোগ হয়েছে।
অন্যদিকে, ফ্রান্সে একদিনে বেডেছে আরও ৯৮৭ মৃত্যু। ফ্রান্স ও ব্রিটেনে মৃত্যু বেড়ে হয়েছে যথাক্রমে ১৩ হাজার ১৯৭ ও ৮ হাজার ৯৫৮। বেলজিয়ামে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৯৬ জন মারা গেছেন।
জার্মানিতে আরও ৮১টি মৃত্যুসহ মৃত বেড়ে হয়েছে ২,৬৮৮। গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা বিশ্বে ৬ হাজার ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার এই সংখ্যাটা ছিল ৭ হাজার ২৩৪।

Post a Comment

[blogger]

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget