04/22/20

সাভারে সন্তানের খাবার কিনতে নিজের চুল বিক্রি করে দিলেন মা। এলাকায় নতুন হওয়ার কারণে কারও সহায়তা না পেয়ে নিজের চুল বিক্রি করেন বলে জানান ওই নারী।
দুইদিন ধরে ঘরে কোনো খাবার নেই। ত্রাণের জন্য ঘুরেছেন অনেকের দরজায়। নিজের ক্ষুধা হয়ত সহ্য করা যায়, কিন্তু ১৮ মাসের শিশুর কান্না যেন তার বুকে শেলের মতো ধাক্কা দেয়। তাই হকারের (চুল ক্রেতা) কাছে মাথার চুল বিক্রি করে দিয়েছেন ওই নারী।
গত সোমবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকার সাভারের ব্যাংক কলোনি এলাকায় ঘটে এমন ঘটনা। ওই নারীর নাম সাথী বেগম। কাজের সন্ধানে ময়মনসিংহ থেকে মাস চারেক আগে রাজধানীর মিরপুর ও তার কিছুদিন পর সাভারের ব্যাংক কলোনি এলাকায় আসেন তিনি।
সাথী বেগম বলেন, দু’দিন ধরে দুই সন্তানকে নিয়ে না খেয়ে থেকে ত্রাণের জন্য চেষ্টা করেছি। কেউ কোনো সহায়তা করেনি। সোমবার দুপুরে বাড়ি ফেরার পথে পরিচয় হয় এক হকারের (চুল ক্রেতা) সঙ্গে। সে চুল দেখে তিন-চারশ’ টাকা দেওয়ার কথা বললেও ১৮০ টাকা দিয়ে চলে যায়।
তিনি বলেন, এলাকায় নতুন হওয়ার কারণে তিনি কারও সহায়তাও পাননি। ক্ষুধায় সন্তানরা কাঁদছে। ঘরে কোনো টাকা কিংবা কোন সম্পদ নেই, যা দিয়ে খাবার কিনবেন। কোনো উপায় না পেয়ে নিজের মাথার চুল ১৮০ টাকায় বিক্রি করে দিয়েছি।
সাথী বেগমের স্বামী মানিক পেশায় দিনমজুর, তিনি নিজেও বাসা-বাড়িতে কাজ করেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হলে দু’জনেই কাজ হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছেন। হকারের কাছ থেকে পাওয়া টাকা দিয়ে নিজের সন্তানের জন্য সামান্য পরিমাণ দুধ ও এক কেজি চাল কিনেছেন।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সাভার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা পারবেজুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। এমন হয়ে থাকলে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। খুব দ্রুত ওই পরিবারকে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।
সাভার পৌর মেয়র আব্দুল গনি জানান, তিনি পৌর এলাকার অনেক হতদরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন। তবে বাচ্চার খাবারের জন্য কেউ চুল বিক্রি করেছেন, এমনটা তার জানা নেই।


Kolkata's chinese residents come to the aid of corona hit Chinaগত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তের সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় কমেছে। তবে এই সময়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১০ জন করোনায় আক্রান্ত  হয়ে মারা গেছেন। একই সময় দেশে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছেন ৩৯০ জন। এ পর্যন্ত ৫৫ জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।
দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানানো হয়।
ব্রিফিংয়ে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৯৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। গতকাল ২ হাজার ৯৭৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় আগের দিনের তুলনায় বেশি লোকের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার ৯ জনের মৃত্যুর তথ্য জানানো হয়। আর করোনা শনাক্ত হয় ৪৩৪ জনের।
আজ বুধবারের তথ্য অনুযায়ী, দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মারা গেছেন ১২০ জন। আর মোট শনাক্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৭৭২ জন।
গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হলেন ৯২ জন।
গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্তের ঘোষণা আসে। আর ১৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।


ভাড়া দিতে না পারায় ঝড়ের রাতে তিন শিশুসহ এক দম্পতিকে বাসা থেকে বের করে দেওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত বাড়ির মালিক সেই নূর আক্তার সম্পাকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) রাত আটটার দিকে কলাবাগানের সেই বাড়ি থেকে সম্পাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-২ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর এইচ এম পারভেজ আরেফিন।
এর আগে গত শনিবার মধ্যরাতে এক মাসের ভাড়া বকেয়া থাকায় ওই ভাড়াটিয়াকে বের করে দেয়া হয়। বাড়ির মালিকের কাছে অনেক অনুনয় বিনয় করলেও তাদের কোনও কথা শোনেনি বাড়িটির মালিক। ঝড়ের রাতে জোর করে তিন শিশুসহ তাদের বের করে দেওয়ার পর বাড্ডায় এক স্বজনের বাসায় ঠাঁই হয় পরিবারটির। 
পরদিন পুলিশ ও র‌্যাব বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাড়ির মালিকের সঙ্গে কথা বলেন। কিন্তু তাতেও কাজ না হওয়ায় ওই দম্পত্তি কলাবাগান থানায় একটি মামলা করেন। এরপর থেকে বাড়ির মালিক ও তার স্বামীকে খুঁজছিল আইনশৃঙ্খ লাবাহিনী। এরপর সোমবার ওই পরিবারকে বাড়িতে তুলে দেয় র‌্যাব সদস্যরা। কিন্তু তারপরও ওই দম্পত্তিকে বিভিন্নভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল।
জানা যায়, ছোট দুই সন্তান ও কোলের দুই মাসের এক বাচ্চাসহ কলাবাগানের একটি বাসায় ছয় মাস আগে ভাড়াটিয়া হিসেবে উঠেছিলেন সেলিম হোসেন। তিনি একটি দোকানে কাজ করতেন। করোনাভাইরাসের কারণে তিনি এখন বেকার থাকায় এক মাসের ভাড়া দিতে পারছিলেন না।
কুলসুম-সেলিম দম্পতি জানান, তারা প্রতি মাসে ভাড়া পরিশোধ করেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে এক মাসের ভাড়া বকেয়া পড়েছে। এতে বাড়িমালিকের কাছে অনেক অনুনয় করেছেন। কিন্তু তাদের কোনো কথা শোনেননি। বরং রাতেই বাড়ির মালিক সম্পা মিথ্যার আশ্রয় নেয়। থানায় মৌখিক অভিযোগ করেন, তার ভাড়াটিয়া বাড়ি মালিককে মারধর করছেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারে বিষয়টি মিথ্যা।
এর আগে করোনাভাইরাসের এই পরিস্থিতিতে কাউকে বাড়ির মালিক হয়রানি করলে কঠোর ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম। এছাড়া  বিদ্যুৎ ও জ্বালানি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, করোনা ঝুঁকিতে রয়েছেন কিংবা করোনা প্রতিরোধে কর্মরত কাউকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে চাইলেও ওই বাড়ির গ্যাস-বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করা হবে।

যে কারণে ঢাকা আসছেন পাকিস্তানের ...
করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সম্প্রতি ইমরান খান এমন এক সমাজকর্মীর সংস্পর্শে এসেছেন যার শরীরে পরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে । এরপর থেকেই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আজ বুধবার তার করোনা পরীক্ষার ফলাফল দেয়ার কথা রয়েছে।
এ বিষয়টি নিশ্চিত করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মুখপাত্র ফয়সাল সুলতান বলেন, ইমরান খানের করোনা পরীক্ষা করা হবে কারণে সে ইদহি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ফয়সাল ইদহির সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন যার কি না পরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। জানা গেছে, গত ১৫ এপ্রিল পাকিস্তানের সমাজ সেবামূলক সংস্থা ইদহি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ফয়সাল ইদহির সঙ্গে সাক্ষাত করেন ইমরান খান । সেদিন ইমরান খানের সঙ্গে দেখা করে করোনা ভাইরাস মোকাবিলার জন্য ১০ মিলিয়নের পাকিস্তানি রুপির একটি চেক দেন ফয়সাল ইদহি ।
ওয়ার্ল্ড ও মিটারের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, পাকিস্তানে এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৯ হাজার ৭শ ৪৯ জন । মারা গেছেন ২০৯ জন।

Coronavirus - The Washington Post
সম্প্রতি  করোনাভাইরাস নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। এ অভিযোগকে 'ভুয়া' বলে উড়িয়ে দিয়েছে মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্ট।

মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে ওয়াশিংটন পোস্ট লিখেছে, গত জানুয়ারি মাসে বেইজিংস্থ মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তারা বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা নিয়ে ডাব্লিউএইচও’র কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে যাচ্ছিলেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমেরিকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে দুইবার, দ্বিতীয় সপ্তাহে তিনবার, তৃতীয় সপ্তাহে তিনবার এবং চতুর্থ সপ্তাহে অন্তত ১০ বার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গে হয় সরাসরি সাক্ষাৎ করেছেন অথবা টেলিফোনে যোগাযোগ করেছেন।

ওয়াশিংটন পোস্ট লিখেছে, এসব সাক্ষাৎ ও যোগাযোগের বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এখন সমালোচনা থেকে রক্ষা পেতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহারের চেষ্টা করছেন।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়ার পর বিষয়টিকে সামান্য হিসেবে তুলে ধরে ট্রাম্প একে সাধারণ ফ্লু বলে উল্লেখ করেন। কিন্তু পরবর্তীতে দেশটিতে ভয়ঙ্করভাবে করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর চীনের সঙ্গে সহযোগিতা করার দায়ে ডাব্লিওএইচও’কে দায়ী করেন এবং এই বিশ্ব সংস্থাকে দেয়া আর্থিক সহযোগিতা বন্ধ করে দেন। 

Corona Impact: বিশ্বে ক্ষুধা দ্বিগুণ হবে ...
করোনাভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে বিশ্ব। এই সংকট শেষ পর্যন্ত আঘাত হানবে মানুষের পেটে। জাতিসংঘ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, করোনার কারণে খাদ্য নিরাপত্তার যে ঝুঁকি তৈরি হয়েছে তাতে বিশ্বজুড়ে ক্ষুধার্ত মানুষের সংখ্যা দ্বিগুণ বেড়ে যেতে পারে। খবর রয়টার্সের।
মঙ্গলবার জেনেভায় জাতিসংঘের সংস্থা বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) জানিয়েছে, ইতোমধ্যে বিশ্বে খাদ্য সংকটে ভোগা মানুষের সংখ্যা সাড়ে ১৩ কোটি। করোনার সংকটের কারণে এর সঙ্গে আর ১৩ কোটি মানুষ যুক্ত হতে পারে। অর্থাৎ বিশ্বজুড়ে সাড়ে ২৬ কোটি মানুষ খাদ্য সংকটে ভুগবে। পর্যটন রাজস্ব হারানো, প্রবাসীদের আয় পাঠানো কমে যাওয়া এবং ভ্রমণসহ অন্যান্য নিষেধাজ্ঞার কারণে আয় কমে যাওয়ায় এই পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে সংস্থাটি সতর্ক করে দিয়েছে।
ডব্লিউএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই পরিস্থিতিতে সংস্থাটির নিজস্ব খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বের ৮০টির বেশি দেশে অন্তত ১০ কোটি মানুষকে খাদ্যের জোগান দেয় ডব্লিউএফপি। এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির প্রধান অর্থনীতিবিদ এবং গবেষণা, মূল্যায়ন ও পর্যবেক্ষণ পরিচালক আরিফ হুসেইন বলেন, 'ইতোমধ্যে ঝুঁকির মধ্যে থাকা লাখ লাখ মানুষের জন্য করোনাভাইরাস সম্ভবত বিপর্যয়কর হতে যাচ্ছে।' তিনি আরও বলেন, 'দৈনিক মজুরি পেলেই কেবল খেতে পান এমন লাখ লাখ মানুষের জন্য এই মহামারি মারাত্মক বিপর্যয়কর। লকডাউন আর বিশ্বজুড়ে আসন্ন মন্দায় ইতোমধ্যে তাদের সামান্য সঞ্চয় শেষ হয়ে গেছে। বিশ্বজুড়ে এই বিপর্যয় সামাল দিতে আমাদের অবশ্যই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।'
ডব্লিউএফপি বলছে, বর্তমানে চরম খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় থাকা মানুষের বেশিরভাগই নিম্ন এবং মধ্য আয়ের দেশগুলোর বাসিন্দা। খাদ্য সংকট বিষয়ক বৈশ্বিক রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৯ সালে চরম খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় ভোগা সবচেয়ে বেশি মানুষ সংঘাত কবলিত দেশের বাসিন্দা। তাদের সংখ্যা প্রায় সাত কোটি ৭০ লাখ। এর পরেই রয়েছে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সংকটে পড়া মানুষ। তাদের পরিমাণ তিন কোটি ৪০ লাখ। এ ছাড়া অর্থনৈতিক সংকটে পড়া আরও দুই কোটি ৪০ লাখ মানুষও খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় পড়েছে।
বিশ্বজুড়ে নতুন করে যেসব মানুষ খাদ্য সংকটে পড়তে যাচ্ছে তাদের সহায়তার জন্য চলতি বছর ১০ থেকে ১২ বিলিয়ন ডলারের তহবিল প্রয়োজন। গত বছরের রেকর্ড ৮ বিলিয়ন ডলারের চেয়ে যা বেশি। তবে করোনার কারণে অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পড়া দেশগুলো অর্থায়ন করবে কিনা তা নিয়েও চিন্তায় পড়েছে সংস্থাটি।

সময়টিভির ইউটিউব চ্যানেলে গত সোমবার বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক ও জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমানের নামে প্রচারিত একটি অডিও ক্লিপকে বানোয়াট আখ্যায়িত করে মিথ্যা ও মানহানিকর সংবাদ প্রচারের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার আহবান জানিয়েছেন মাওলানা মাহফুজুল হক। অন্যথায় টিভি চ্যানেলটির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানিয়েছেন তিনি।
মঙ্গলবার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সেমাবার সময় টিভিতে আমাকে কেন্দ্র করে একটি সংবাদ প্রচার করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, আমি মাওলানা জুবায়ের আহমদ আনসারীর জানাযায় অধিক লোক জমায়েত করার জন্য ষড়যন্ত্রমূলকভাবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীরের সাথে যোগসাজশ করেছি এবং ফোনালাপের একটি বানোয়াট অডিও ক্লিপ সময় টিভি প্রচার করেছে।
তিনি বলেন, সংবাদটি পুরোপুরি মিথ্যা, মনগড়া ও পরিকল্পিতভাবে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র। আলেম সমাজকে মানুষের সামনে ষড়যন্ত্রকারী হিসাবে প্রতিপন্ন করার ভয়ংকর অপতৎপরতা।
মাওলানা মাহফুজ বলেন, আমি এবং আমাদের সংগঠন ইতিপূর্বেই আমাদের অবস্থান পরিষ্কার করে জাতীয় গণমাধ্যমে বক্তব্য তুলে ধরেছি।জানাযায় অনাকাঙ্খিত অধিক লোক সমাগমের বিষয়টি সম্পূর্ণ অপরিকল্পিত ও কাকতালীয়। ব্যাপক সমাগমের কোনো চিন্তাও আমাদের ছিল না। বরং লোকসমাগম যেন না হয় সে জন্য আমরা আমাদের পক্ষ থেকে পদক্ষেপ নিয়েছিলাম।
তিনি বলেন, সময় টিভি কর্তৃপক্ষ যে জঘন্য মিথ্যাচার করেছে এতে আমার মারাত্মক রকম মানহানি হয়েছে। আমি কখনোই জামাতের আমীর কিংবা অন্য কারো সাথে এজাতীয় কোনো কথোপকথন বা আলোচনা করিনি। আমি অত্র প্রতিবাদ পত্রের মাধ্যমে সুস্পষ্টভাবে বলছি সময় টিভিকে এই মিথ্যা ও মানহানিকর সংবাদ প্রচারের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা ও ভুল স্বীকার করে সংবাদ প্রচার করতে হবে ৷ অন্যথায় আমি সময় টিভির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।
সময় টিভির ইউটিউব চ্যানেলটিতে প্রচারিত ওই অডিও ক্লিপকে মিথ্যা-বানোয়াট আখ্যায়িত করে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকেও আলাদা প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন ইসলামী দল ও সংগঠন দুটি ইসলামী দলের নেতার নামে প্রচারিত ফোনালাপের ক্লিপটিকে সম্পুর্ণ বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত আখ্যায়িত করে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget