Articles by "সারাদেশ"



বিশেষ প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম: গতকাল শনিবার চট্টগ্রাম’সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে উগ্র কর্মীদের হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ,চরমোনাই, আলেম-উলামা ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে উস্কানীমূলক সন্ত্রাসী শ্লোগানের কড়া সমালোচনা করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজত মহাসচিব, হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

আজ (৮ নভেম্বর) রবিবার রাতে গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে আল্লামা বাবুনগরী বলেন,হেফাজতে ইসলাম দেশের সর্ববৃহৎ অরাজনৈতিক ঈমান-আকিদা ভিত্তিক সংগঠন। লক্ষ কোটি মুমিন মুসলমানের প্রাণের সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। হেফাজতকে নিয়ে উস্কানিমূলক সন্ত্রাসী শ্লোগান দিয়ে চরম ধৃষ্টতা দেখিয়েছে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। হেফাজতকে নিয়ে কোন রাম বামদের উস্কানি আর আস্ফালন সহ্য করা হবে না।

হেফাজত মহাসচিব আরো বলেন, ক'দিন আগে শাহবাগে বাম সংগঠনসমূহের অনুষ্ঠিত একটি সমাবেশ শেষে ‘প্রগতিশীল গণসংগঠনসমূহ’ ব্যানারে উদীচী, ছাত্র ইউনিয়ন, যুব ইউনিয়নসহ কিছু সংগঠনের নেতাকর্মীদের একটি মশাল মিছিল শহীদ মিনারে যাওয়ার পথে ‘হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ'-এর বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ানোর উদ্দেশ্যে  বিদ্বেষ ও উস্কানীমূলক শ্লোগান দিয়েছিল। ওরা মূলত এসব উস্কানিমূলক শ্লোগানের মাধ্যমে দেশে বিরাজমান সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও শান্তি-শৃঙ্খলা বিনষ্ট করতে চায়। দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে হুমকির মুখে ঠেলে দিতে চায়। ওরা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির মাধ্যমে দেশবিরোধী আধিপত্যবাদি শক্তির হাতে আগ্রাসনের অজুহাত তুলে দিতে চায়। দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় সরকারের কর্তব্য, এসব উগ্রপন্থী সংগঠনের বিরুদ্ধে যথাযথ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা। 

আল্লামা আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, হেফাজতে ইসলাম বৃহত্তর অরাজনৈতিক ধর্মীয় সংগঠন। ইসলাম, মুসলমান, দেশ ও জাতীর কল্যাণে সংগঠনটি শান্তিপূর্ণভাবে কাজ করে যাচ্ছে। হেফাজতকে নিয়ে বাম রামদের আস্ফালনের আড়ালে ইসলাম ও দেশবিরোধী গভীর ষড়যন্ত্র নিহীত বলে মনে করি। কোন আধিপত্যবাদি শক্তির হয়ে দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব এবং ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে কোন ধরনের ষড়যন্ত্র দেশবাসী সফল হতে দিবে না। অনতিবিলম্বে এদের আস্ফালন বন্ধ করা না হলে তৌহিদি জনতা ঈমান, ইসলাম ও দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা ও স্বাধীনতা রক্ষায় ষড়যন্ত্রকারীদেরকে সমূচি জবাব দিতে বাধ্য হবে। 

হেফাজত মহাসচিব আল্লামা বাবুনগরী  বলেন, পৃথিবীর বুকে ইসলাম একমাত্র শান্তির ধর্ম। হযরত মুহাম্মদ (সা.) বিশ্ববাসীর জন্য শান্তির বার্তাবাহক হিসেবে প্রেরিত হয়েছেন। হাদীস শরীফে রাসুল (সা.) সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তার বিধান বর্ণনা করেছেন। সংখ্যালঘুদের জান, মাল ও ইজ্জত- আব্রু রক্ষার আদেশ দিয়েছেন। কেবলমাত্র শান্তিরধর্ম ইসলামই সংখ্যালঘুদের সার্বিক নিরাপত্তা এবং সুখ-সমৃদ্ধি নিশ্চিত করেছে। বাংলাদেশে সকল ধর্মের মানুষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান নিশ্চিত রয়েছে। মুসলমানরা কখনো হিন্দু ও সংখ্যালঘুদের উপর হামলা করেনি। হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, জাগো হিন্দু পরিষদ এসব উস্কানিমূলক শ্লোগান দিয়ে দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করে আধিপত্যবাদি শক্তির ছত্রছায়ায় হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

হেফাজত মহাসচিব বলেন, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ বাংলাদেশের জন্য চরম হুমকি। এই সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা বাংলাদেশ নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে ভুল তথ্য প্রকাশ এবং বানোয়াট ও ডাহা মিথ্যা অভিযোগ করে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুন্ন করেছিল। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নকারী এ উগ্র সংগঠন আবারো মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে চাচ্ছে। দেশে অরাজকতা সৃষ্টির পায়তারা করছে। সরকারকে এদের বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।


স্টাফ রিপোর্টার: রাসুল বা রাসুলের সম্মান নিয়ে কেউ যদি কোন অসংলগ্ন বা অযচিত কথা বলে তাহলে রংপুরের মুসলমানরা বসে থাকবে না। তারা এর উপযুক্ত জবাব দেবে বলে মন্তব্য করেন রংপুরের ঐতিহ্যবাহী জুম্মাপাড়া মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও ইমাম উলামা পরিষদ রংপুরের প্রধান উপদেষ্টা মাওলানা হাফেজ ইদ্রীস আলী।

৬ নভেম্বর শুক্রবার আল জামিয়াতুল কারিমিয়া নুরুল উলুম জুম্মাপাড়া মাদারাসার জামে মসজিদে জুমার আলোচনায় তিনি এমন মন্তব্য করেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতা বলেছে রাসুল দয়ালু ছিলেন, রাসুলকে অনেকে অসম্মান করলে বা কষ্ট দিলেও তিনি ক্ষমা করে দিয়েছেন। কিন্তু এখনকার মোল্লারা অযথাই ফ্রান্সের বিষয় নিয়ে পরিস্থিতি খারাপ করছে। 

তিনি বলেন, একজন মুসলমান কখনো এমন কথা বলতে পারে না। আমরা তার বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাই। তারা এসব কথা বলে মুসলমানদের ঈমানী আন্দোলনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার পাঁয়তারা করছে। মুসলমানরা কখনোই এসব মেনে নেবে না। যারাই মুসলমানদের ঈমানী আন্দোলনে বাধার সৃষ্টি করতে চাইবে, যারাই আমাদের রাসুল সা. কে নিয়ে অযাচিত মন্তব্য করবে, রংপুরে তাদেরকে সহ্য করা হবে না। তাদেরকে সমুচিত জবাব দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার হাফেজ ইদ্রীস আলীর সভাপতিত্বে রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে ফ্রান্সে মহানবীর অবমাননাকে কেন্দ্র করে প্রতিবাদী মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে ইমাম উলামা পরিষদ রংপুর। এতে উপস্থিত ছিলেন রংপুরের শীর্ষস্থানীয় উলামা-মাশায়েখ, ইমাম-খতিব ও সাধারণ মুসলিম তৌহিদী জনতা।


প্রবচন ডেস্ক: ৩১ অক্টোবর শনিবার রংপুরের আলেম-উলামা ও ইমাম খতিবদের সংগঠন `ইমাম উলামা পরিষদ রংপুর’ এর কার্যকরী কমিটির এক সভা জুম্মাপাড়াস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে পরিষদের সভাপতি মাওলানা ইউনুস আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

এতে ফ্রান্সের রাষ্ট্রীয় মদদে বিশ্বনবী সা. এর অবমাননার প্রতিবাদে ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে ইমাম উলামা পরিষদ রংপুরের ডাকে প্রতিবাদী মানববন্ধন কর্মসূচি সুষ্ঠুভাবে সফল করায় সর্বস্তরের তৌহিদী জনতা, স্থানীয় প্রশাসন ও সাংবাদিকবৃন্দের প্রতি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানানো হয়।

সেইসাথে লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রামের বুড়িমারী ইউনিয়নে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনা অনাকাঙ্খিত ও দুঃখজনক বলে জানানো হয়। এই ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তসাপেক্ষে সত্য উন্মোচনের মাধ্যমে প্রকৃত দোষী ব্যক্তিদেরকে দ্রুত শাস্তির আওতায় আনার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবী জানানো হয়।


প্রবচন ডেস্ক: হযরত মুহাম্মদ সা. ও তাঁর স্ত্রী আয়েশা সিদ্দীকাকে রা. নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কটূক্তি করায় ফেনীতে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) রাতে মিঠুন দে ওরফে পিকলু নীল (৩২) নামের ওই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়।

মিঠুন দে ওরফে পিকলু নীল ফেনী শহরের ডাক্তার পাড়ার বাসিন্দা কালি প্রসাদ ওরফে বাচ্চু দে’র ছেলে।

ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) ওমর হায়দার  জানান, গ্রেপ্তার পিকলু তার ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি ‘পিকলু নীল’ থেকে ধর্মীয় উসকানিমূলক বিভিন্ন প্রচারণা চালিয়ে আসছিল। এসব পোস্ট ছড়িয়ে পড়লে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের মধ্যে ক্ষোভ ও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তারা প্রশাসনের কাছে তাকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে প্রশাসনের কাছে দাবি জানায়।

এরপর বৃহস্পতিবার রাতে পিকলুকে আটক করা হয়। আটকের পর ফেনী সদর উপজেলার ধলিয়া ইউনিয়নের ফজল উদ্দিন ক্বারি বাড়ির আশেক এলাহীর ছেলে ছানা উল্লাহ বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর পিকলুকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

ওসি আরও জানান, আজ শনিবার পিকলুকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আরটিভি নিউজ


প্রবচন ডেস্ক: লালমনিরহাটের পাটগ্রামের বুড়িমারীতে গুজব ছড়িয়ে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করে মরদেহ আগুনে পোড়ানোর ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করেন জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফর। আগামী ৩ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। অপরদিকে র‍্যাবের পক্ষ থেকেও ছায়া তদন্ত করা হচ্ছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) বিকেলে পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত যুবক শহিদুন্নবী জুয়েল রংপুর শহরের শালবন মিস্ত্রীপাড়া এলাকার আব্দুল ওয়াজেদ মিয়ার ছেলে। তিনি রংপুর ক্যান্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাবেক গ্রন্থাগারিক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শহিদুন্নবী জুয়েল বৃহস্পতিবার বিকেলে সুলতান যোবাইয়ের আব্দার নামে একজন সঙ্গীসহ বুড়িমারী বেড়াতে আসেন। বিকেলে বুড়িমারী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে আসরের নামাজ আদায় করেন তারা।

নামাজ শেষে পাঠ করার জন্য মসজিদের সানসেটে রাখা কোরআন শরীফ নামাতে গিয়ে অসাবধনাতাবশত কয়েকটি কোরআন ও হাদিসের বই তার তার পায়ের ওপর পড়ে যায়। এ সময় তুলে চুম্বনও করেন জুয়েল। বিষয়টি নিয়ে তার সঙ্গে মুয়াজ্জিনের কথা কাটাকাটি হয়। এরপর আশপাশের লোকজন ছুটে এসে সন্দেহবশত জুয়েল ও সুলতান যোবাইয়েরকে পাশে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের একটি কক্ষে আটকে রাখে। খবর পেয়ে পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, ওসি বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদে উপস্থিত ছিলেন ।

সন্ধ্যায় পুরো বাজারে এবং পাশের গ্রামে গুজব ছড়িয়ে পড়ে কোরআন অবমাননার দায়ে দুই যুবককে আটক করা হয়েছে। এ সময় উত্তেজিত হয়ে বিক্ষুব্ধ জনতা ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের দরজা জানালা ভেঙে প্রশাসনের কাছ থেকে জুয়েলকে ছিনিয়ে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে মরদেহ টেনে পাটগ্রাম বুড়িমারী মহাসড়কে নিয়ে আগুনে পুড়িয়ে ছাই করে দেয়। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা মহাসড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করে।

সন্ধ্যা থেকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা থানা পুলিশ, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা দফায় দফায় চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতার ছোড়া ইট পাথরের আঘাতে পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন্ত কুমার মোহন্তসহ ১০ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে ১৭ রাউন্ড ফাঁকাগুলি ছোড়ে পুলিশ।

রাত সাড়ে ১০টার দিকে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর ও পুলিশ সুপার (এসপি) আবিদা সুলতানা অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। নিহত জুয়েলের সঙ্গী সুলতান যোবাইয়েরকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি র‌্যাবের সদস্যরা টহল অব্যাহত রেখেছেন।

পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন্ত কুমার মোহন্ত সাংবাদিকদের বলেন, এ ঘটনায় নিহতের পরিবার, পুলিশের ওপর হামলা ও ইউনিয়ন পরিষদ ভাঙচুরের দায়ে পৃথক তিনটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। অপরাধীদের চিহ্নিত করতে কাজ করছে পুলিশ।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফর সাংবাদিকদের বলেন, এ ঘটনায় মামলা করা হচ্ছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


প্রবচন: ফ্রান্সে মহানবী সা. এর ব্যাঙ্গ কার্টুন তৈরি করে রাষ্ট্রীয় মদদে প্রচার ও প্রদর্শনের প্রতিবাদে রংপুর জেলার আলেম-উলামা ও ইমাম-খতিবদের সংগঠন ইমাম উলামা পরিষদ রংপুর প্রতিবাদী মানববন্ধন করে। 

২৯ অক্টোবর ২০২০ বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় ইমাম উলামা পরিষদ রংপুর এর আহ্বানে রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা হাফেজ মাওলানা ইদ্রীস আলী।




মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাক্রোঁর প্রত্যক্ষ মদদে রাষ্ট্রীয় সহযােগিতায় পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ মানব, মুসলমানদের হৃদয়স্পন্দন বিশ্বনবী মুহাম্মাদ সা. এর ব্যাঙ্গচিত্র তৈরি করে পৃথিবীর দুইশাে কোটি মুসলমানের হৃদয়ে কুঠারাঘাত করা হয়েছে। সেই সাথে এসব ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করা বন্ধ করবে না বলে জানিয়ে বিশ্বের সকল মুসলমানের মানবিক ও মৌলিক অধিকার চরমভাবে খর্ব করেছে ম্যাক্রোঁ।


বক্তারা আরাে বলেন, একজন মুসলমান কখনাে কোন গুস্তাখে রাসুলের সহযােগী হতে পারে না। তাই মুসলমানদের ইমানী দায়িত্ব হয়ে দাঁড়িয়েছে ফ্রান্সের যাবতীয় পণ্য বর্জন করা।


ফ্রান্সের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক বর্জন করে তাদেরকে সমুচিত জবাব দেয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতিও তারা জোর দাবী জানান।


এসময় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন পরিষদের সহ-সভাপতি মুফতি জসিম উদ্দীন, মাওলানা রবিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ আমজাদ হােসাইন, প্রধান মিডিয়া সম্পাদক ক্বারী আতাউল হক, মাওলানা ইউছুফ আলী, ক্বারী আশরাফ আলী, মাওলানা নেয়ামুল হক, মাওলানা কাজী হামদুল্লাহ ও হাফেজ জয়নাল আবেদীনসহ পরিষদের অন্যান্য নেতারা।





স্টাফ রিপোর্টার: রংপুর নগরীর মডার্ন মোড় এলাকা থেকে গতকাল ২৭ অক্টোবর মাদকাসক্ত ছয় যুবককে আটক করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। 

দুপুরে নগরীর তাজহাট থানাধীন মর্ডান মোড় এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের এক অভিযানের সময় তাদেরকে আটক করা হয় বলে জানান অভিযানে নেতৃত্বদানকারী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ হাসান মৃধা।


আটককৃতরা হলেন- নগরীর তাজহাট আলহাজ্ব নগরের মজিবর রহমানের ছেলে মইনুল হাসান মামুন (২৫), সূত্রাপুরের মৃত মাহাবুল আলমের ছেলে গোলাম রব্বানী (৩৩), একই এলাকার আকবর আলীর ছেলে আমিনুল ইসলাম সোহাগ (২২), তাজহাট আদর্শপাড়ার দিলীপ চন্দ্র রায়ের ছেলে বিনোদ চন্দ্র রায় (২৬), স্টেশন রোড এলাকার মৃত নূর ইসলাম নুরুর ছেলে নুরুল হক মিলন ওরফে হিজড়া মিলন (৩৪) ও নূরপুরের মৃত হুমায়ুন কবিরের ছেলে আসাদুজ্জামান অনিক (২৭)।


নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ হাসান মৃধা জানান, মঙ্গলবার সকালে তাজহাট থানা পুলিশের সহযোগিতায় নগরীর মর্ডান মোড় এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালানো হয়। এ সময় ছয়জনকে আটক করা হয়। পরে তাদের প্রত্যেককে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের করাদণ্ড প্রদান করা হয়।

তবে আটক হওয়া মাদকসেবীদের কাছ থেকে কোনো মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা যায়নি।

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের অন্যতম বিভাগীয় শহর রংপুরে স্থানীয় ইমাম ও আলেমদের সমন্বয়ে একটি নতুন সংগঠন আত্মপ্রকাশ করে।

২৬ অক্টোবর সোমবার সকাল ১০টায় বিভাগীয় শহর রংপুরের এতিহ্যবাহী আল জামিয়াতুল কারিমিয়া নুরুল উলুম জুম্মাপাড়া মাদরাসায় রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সকল ওয়ার্ড ও জেলার সকল উপজেলার আলেম-ইমামদের সমন্বয়ে ‘ইমাম উলামা পরিষদ রংপুর’ নামে সংগঠনটির উদ্বোধন হয় বলে জানান এর এক নেতা কারী আতাউল হক।

তিনি বলেন, একই দিন বেলা ২ টা পর্যন্ত ইমাম উলামা পরিষদের প্রথম সাধারণ সভাও অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন জেলার সকল উপজেলা ও সিটি কর্পোরেশনের সকল ওয়ার্ডের ইমাম ও আলেমগণ।

জুম্মাপাড়া মাদরাসার পরিচালক হাফেজ ইদ্রিস আলীর সভাপতিত্বে ওই সাধারণ সভায় রংপুর সিটির সকল ওয়ার্ড ও সকল উপজেলার জন্য সংগঠনের পক্ষ থেকে পৃথক পৃথক আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে দেয়া হয়।


সংগঠনের আরেক নেতা জয়নাল আবেদীন জানান, সম্প্রতি ফ্রান্সে সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সা. এর কাল্পনিক ও বিকৃত ব্যাঙ্গ কার্টুন প্রদর্শনের প্রতিবাদে আগামী ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে সংগঠনটি। এই কর্মসূচির মাধ্যমেই তাদের সাংগঠনিক কাজের সূচনা হবে বলে জানান তিনি। 


পরিষদের একজন শীর্ষ নেতা মাওলানা মাহমুদুর রহমান বলেন, সংগঠনটিতে প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন রংপুর জুম্মাপাড়া মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক হাফেজ ইদ্রিস আলী। অন্যান্যের মধ্যে দায়িত্বে রয়েছেন সভাপতি হিসেবে মাওলানা ইউনুস আলী, সহসভাপতি মুফতি জসিম উদ্দীন ও মুফতী নাজমুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদুর রহমান, সহকারী সম্পাদক মাওলানা সাইফুল ইসলাম জিহাদী ও কারী আশরাফ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ আমজাদ হোসাইন, মিডিয়া সম্পাদক কারী আতাউল হক, মাওলানা কাজী হামদুল্লাহ ও হাফেজ জয়নাল আবেদীন । 


মুহা.জয়নাল আবেদীন স্টাফ রিপোর্টার: দেশব্যাপী ক্রমবর্ধমান যিনা-ব্যভিচার, গণধর্ষণ, নারী নির্যাতন, আইন-শৃঙ্খলার চরম অবনতি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য-মূল্য ঊর্ধগতির প্রতিবাদে, শুক্রবার বিকাল ৩টায় দেশ রংপুর সিটি পার্ক চত্বরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রংপুর মহানগরের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ ও গণমিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

এতে মাও. আব্দুর রহমান কাসেমীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন রংপুর জেলা শাখার সভাপতি মাও. খাইরুল ইসলাম, সেক্রেটারি মাহমুদুর রশিদ রিপন, শ্রমিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয়সহ সভাপতি আমিরুজ্জামান পিয়াল, মহানগর সেক্রেটারি আব্দুর রহমান ফারুকী, ইশা ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আল আমিন, জেলা সভাপতি লিয়াকত বিন সিদ্দিকসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সমাবেশে বক্তারা ধর্ষণের শাস্তিরূপে সদ্য বর্ধিত আইন বাস্তবায়নের দাবী জানান। এছাড়া দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধি এবং আইন-শৃঙ্খলার চরম অবনতি কথা উল্লেখ এর তীব্র প্রতিবাদ জানান। 

তারা আরো বলেন, দেশের জনগণের প্রকৃত অধিকার সঠিকভাবে বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবো।


জয়নাল আবেদীন, স্টাফ রিপোর্টার: নােয়াখালীর বেগমগঞ্জ ও সিলেটের এমসি কলেজসহ সারাদেশে ক্রমাগত ধর্ষণের প্রতিবাদ ও ধর্ষকদের ফাঁসির দাবীতে শুক্রবার বেলা ৩ টায় রংপুর সিটিপার্ক চত্তরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বিক্ষোভ সমাবেশ করে।

জানা যায়, 

দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশের অংশ হিসেবে রংপুর মহানগর শাখার ডাকে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 

সমাবেশে বক্তারা ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি হিসেবে ফাঁসির আইন বাস্তবায়নের দাবী জানান। এছাড়া ঘটে যাওয়া ধর্ষণের ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যর্থতার কথা উল্লেখ করে তার পদত্যাগও চাওয়া হয়। 

বক্তারা বলেন, তাদের দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে।


সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রংপুর জেলা ও মহানগর শাখাসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সমাবেশ শেষে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে দলটি বিক্ষোভ মিছিল করে।

ভিডিও

প্রবচন ডেস্ক: সিলেটের এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনা স্থানীয় কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিলেন বলে অভিযোগ ওঠেছে।

একটি সূত্র জানায়, এই ধর্ষণের ঘটনা ধাপাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন স্থানীয় কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা । তারা আপস মীমাংসারও চেষ্টা চালান। প্রথমদিকে পুলিশও বিষয়টি গণমাধ্যমের কাছে এড়িয়ে যায়। পরে গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে বিষয়টি জানাজানি হয়ে যাওয়ায় ধাপাচাপা দেয়ার চেষ্টা বিফলে যায়। তবে, দীর্ঘ সময়ক্ষেপণের কারণে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় অভিযুক্তরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকেলে স্ত্রীকে নিয়ে প্রাইভেটকারে করে এমসি কলেজে বেড়াতে যান দক্ষিণ সুরমা এলাকার এক যুবক। বিকেলে এমসি কলেজের ছাত্রলীগের ছয়জন নেতা তাদের ধরে ছাত্রাবাসে নিয়ে আসেন। এই ছাত্রনেতাদের প্রত্যেকেই ছাত্রাবাসে থাকেন। ছাত্রাবাসে এনে ওই দম্পত্তিকে প্রথমে মারধর করেন তারা। পরে ওই স্ত্রীকে গণধর্ষণ করেন।

সন্ধ্যার পর এই খবর পেয়ে টিলাগড় এলাকার একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা ও কয়েকজন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। প্রথমে তারা বিষয়টি ধাপাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর তারা বিষয়টি আপসের চেষ্টা চালান। এসময় ধর্ষণের শিকার নারী ও তার স্বামীকে আপস মীমাংসার জন্য চাপ দেয়া হয় বলেও জানা গেছে।

তবে ধর্ষণের খবর পেয়ে গণমাধ্যমকর্মীরা ঘটনাস্থলে হাজির হওয়ায় ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা ব্যর্থ হয়ে যায়। এসময় আওয়ামী লীগ নেতারাও ঘটনাস্থল থেকে সরে পড়েন। তবে আপসের চেষ্টায় অনেক সময় ক্ষেপণের সুযোগে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতারা।

আপস মীমাংসার চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করে সিলেট মহানগরের শাহপরাণ থানার ওসি কাইয়ুম চৌধুরী জানান, এক দম্পতিকে আটকে রাখা হয়েছে খবর পেয়েই আমরা এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে যাই। এরপর সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করি। পরে ধর্ষণের শিকার হওয়া নারীকে ওসমানী হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে ভর্তি করা হয়। এঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

ওসি বলেন, আমরা রাতে অভিযান চালালেও কাউকে গ্রেফতার করতে পারিনি। তবে ভোর ৩টার দিকে এমসি কলেজের হোস্টেলে অভিযান চালিয়ে সাইফুর রহমানের কক্ষ থেকে একটি পাইপগান, চারটি রামদা, একটি চাকু ও দুটি লোহার পাইপসহ বিভিন্ন জিনিস জব্দ করি। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা দায়ের করা হবে।


রংপুরের পীরগঞ্জে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হলো। 

রংপুর ডেস্ক: রংপুরের পীরগঞ্জে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা থেকে অনলাইনের মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হয়ে ভিত্তিপ্রস্তর ফলক উন্মোচন করেন তিনি।

আইটি খাতে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির লক্ষে দেশের আটটি স্থানে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন করছে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ। এরই অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম, সিলেট, রংপুর, নাটোর, কুমিল্লা, নেত্রকোণা, বরিশাল ও মাগুরায় স্থাপন করা হচ্ছে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার। বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে প্রায় ৫৩৩ কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্পের কাজ ২০১৭ সালে শুরু হয়।

উদ্বোধনী বক্তব্যে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, প্রতিযোগিতার এই যুগে আমাদের তরুণদের টিকে থাকতে হলে প্রযুক্তি শিক্ষার বিকল্প নাই। আর এজন্যই আমরা একটি প্রযুক্তি নির্ভর জাতি গড়ে তুলতে চাই।

তিনি বলেন, রংপুর সবসময়ই অবহেলিত এলাকা ছিল, এখানে কখনো শিল্পায়ন হয়নি। রংপুরবাসীর উন্নয়নে সরকার নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার থেকে ট্রেনিং নিয়ে এখানকার তরুণ-তরুণীরা নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারবে, অনেক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। এখন থেকে আর চাকরির পেছনে ছুটতে হবে না, নিজেরাই উদ্যোক্তা হয়ে মানুষকে চাকরি দিবে।

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ এর ব্রেইন চাইল্ড এই প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে একদিকে যেমন বেকারত্ব দূর হবে, একইসঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তিতে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে একরকম উল্লম্ফন সৃষ্টি হবে। মূলত এসএসসি ও এইচএসসি পর্যায়ে ছাত্র-ছাত্রীদের আইটিতে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে মানবসম্পদ উন্নয়নের লক্ষ্যে এই প্রকল্প গৃহীত হয়। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে নতুন নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করে একাডেমিয়া এবং আইটি ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে সেতুবন্ধন প্রতিষ্ঠা করা হবে এই প্রকল্পের মাধ্যমে। ফলে আইটি/আইটিইএস খাতে বাংলাদেশের যুব সমাজের আত্ম-কর্মসংস্থানের ব্যাপক সুযোগ সৃষ্টি হবে।

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম জানান, দেশে এই মুহূর্তে ৫টি হাই-টেক পার্ক বিনিয়োগের জন্য প্রস্তুত। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ইতিমধ্যে বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটিতে ৩৫৫ একর জমিতে বিভিন্ন কোম্পানি কাজ করছে। এখান থেকে উৎপাদিত পণ্য বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন পার্কগুলোতে বেসরকারি খাত থেকে প্রায় ৩২৭ কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে। এর বিপরীতে ২০১৬ সাল থেকেই হাই-টেক পার্ক থেকে আয় শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যেই হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ৫০কোটি টাকার বেশি আয় করেছে।

রংপুর জেলা প্রশাসক মো. আসিব আহসানের সভাপতিত্বে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মো. আব্দুল ওয়াহাব ভূঞা, শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন প্রকল্পের পরিচালক (যুগ্মসচিব) মো. মোস্তফা কামাল, রংপুর পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রংপুর জেলা শাখার সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

রংপুর ডেস্ক: রংপুর নগরের গুরুত্বপূর্ণ জুম্মাপাড়ার সড়ক সংস্কারের জন্য খোঁড়াখুঁড়ি করে ফেলে রাখা হয়েছে। এতে এই সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে ওই এলাকার লোকজন এক মাস ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। সড়কের এই দুরবস্থার কারণে ওই এলাকার ব্যবসায়ীরাও পণ্য আনা–নেওয়া করতে পারছেন না।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে প্রায় এক কোটি টাকা ব্যয়ে নগরের মিঠুর গলি থেকে নিউ জুম্মাপাড়া পাকার মাথা পর্যন্ত এক কিলোমিটার সড়ক সংস্কার ও দুই পাশে নালা নির্মাণের দরপত্র আহ্বান করা হয়। দরপত্র অনুযায়ী সড়কটির প্রস্থ ১৬ দশমিক ৪ ফুট। এই সড়কটির নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার কথা আগামী ডিসেম্বর মাসে। কিন্তু এই সময়ের মধ্যে সড়কের নির্মাণকাজ শেষ হবে না বলে আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। কারণ এখনো সড়কটির কাজ শুধু খোঁড়াখুঁড়ির মধ্যে সীমাবন্ধ রয়েছে। অনেক আগে কাজ শুরু করার কথা থাকলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান আগস্ট মাসে কাজ শুরু করেছে। এ পর্যন্ত সড়কের ২০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে।

নগরের জুম্মাপাড়া এলাকাসহ আরও অনেক এলাকার লোকজন নগরের মিঠুর গলি এলাকা দিয়ে চলাচল করে। এখানে সোনালী ব্যাংকের একটি শাখা, ইলেকট্রনিক সামগ্রী, ওষুধের দোকানসহ বিভিন্ন পণ্যের শতাধিক দোকান রয়েছে।

 সরেজমিনে দেখা গেছে, নগরের জুম্মাপাড়া এলাকাসহ আরও অনেক এলাকার লোকজন নগরের মিঠুর গলি এলাকা দিয়ে চলাচল করে। এখানে সোনালী ব্যাংকের একটি শাখা, ইলেকট্রনিক সামগ্রী, ওষুধের দোকানসহ বিভিন্ন পণ্যের শতাধিক দোকান রয়েছে। সংস্কারের জন্য সড়কের দুই পাশ খুঁড়ে রাখায় ব্যবসাীয়রা নিজ উদ্যোগে কাঠ ও বাঁশ ফেলে চলাচল করছেন। এক মাসের বেশি সময় ধরে সড়কের কাজ বন্ধ।

 ইলেকট্রনিক সামগ্রীর দোকানের ব্যবসায়ী মেরাজুস সালাম বলেন, ‘রাস্তার কাজ না করে এভাবে খুঁড়ে রাখার কারণে আমাদের ব্যবসার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এর চেয়ে আগেই ভালো ছিল।’

লাইনুর নাহার নামের এক ক্রেতা বলেন, ‘যেভাবে রাস্তা খুঁড়ে রাখা হয়েছে, তাতে চলাচল করা কষ্টকর ব্যাপার। যেকোনো সময় গর্তে পড়ে যাওয়ার ভয় থাকে।’

সোনালী ব্যাংকে অবসর ভাতার টাকা তুলতে এসেছেন অনেক বয়স্ক ব্যক্তি। রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি করে রাখায় তাঁদেরও অনেক কষ্ট ও দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সড়কের খানাখন্দ পেরিয়ে ব্যাংকে প্রবেশ করতে গিয়ে অনেকে পা পিছলে পড়েও গেছেন। এ সময় একজন বৃদ্ধ বলেন, ‘এভাবে জনগণকে ভোগান্তি দিয়ে উন্নয়ন না করাই ভালো।’

এ ব্যাপারে ঠিকাদার খাইরুল কবির বলেন, ‘শর্ত সাপেক্ষে এই কাজটি সাব ঠিকাদারকে করতে দিয়েছি। এর বেশি কিছু তিনি বলতে চাননি।’

সাব ঠিকাদার লিটন পারভেজ বলেন, এ এলাকায় কিছু দোকানপাট ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান থাকায় কাজ করতে গিয়ে অনেক অসুবিধা হচ্ছে। তাই কাজে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।

 সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন বলেন, সড়ক এভাবে খোঁড়াখুঁড়ি করে ফেলা রাখায় নগরবাসীর কষ্ট হচ্ছে এ কথা ঠিক। তবে শিগগিরই এ সমস্যার সমাধান হবে।

এ বিষয়ে রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান বলেন, ‘রাস্তার কাজের ধীরগতির কারণে মানুষের কষ্ট হচ্ছে। এ জন্য আমি নগরবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি। যত দ্রুত সম্ভব কাজটি শেষ করার জন্য ঠিকাদারকে তাগাদা দেওয়া হয়েছে।’ 

প্রবচন ডেস্ক: রংপুরে অনুমোদনহীন চিকিৎসা যন্ত্রপাতি বিক্রির দায়ে পাঁচটি সার্জিক্যাল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ওষুধ প্রশাসন থেকে আমদানিকারক বা ব্যবসায়ীরা কোনো অনুমোদন না নেওয়ায় এই জরিমানা করা হয়।

 

মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নগরীর ধাপ এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ হাসান মৃধা।অভিযানে উত্তরা, তাহের, ঢাকা, রংপুর ও আকিব সার্জিক্যালকে ৫ হাজার টাকা করে মোট ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ও তাদের সতর্ক করে দেওয়া হয়।


নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ হাসান মৃধা জানান, পাঁচটি প্রতিষ্ঠানে অভিযানকালে বেশ কিছু অসঙ্গতি দেখা যায়। এসব প্রতিষ্ঠানে ব্লাড প্রেশার মেশিন, অক্সিমিটার, ডিজিটাল থার্মোমিটারসহ বেশ কিছু চিকিৎসা যন্ত্রপাতি বিদেশ থেকে আমদানি করা হলেও ওষুধ প্রশাসন থেকে সংশ্লিষ্ট আমদানিকারক বা ব্যবসায়ীরা কোনো অনুমোদন নেয়নি। বরং তারা বিভিন্ন অজুহাতে আমদানি করা বিদেশি চিকিৎসা যন্ত্রপাতি অতিরিক্ত মূল্যে বিক্রি করে আসছে। ওইসব প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করাসহ সতর্ক করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই অভিযানে ওষুধ প্রশাসনের সহকারী পরিচালক মো. তৌহিদুল ইসলাম, ওষুধ তত্ত্বাবধায়ক ও মেট্রোপলিটন পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।


স্টাফ রিপোর্টার: আজ ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার রংপুরের আলেম-উলামা ও ইমাম-মুয়াযযিনগণের যৌথ উদ্দ্যোগে নগরীর সদর হাসপাতাল জামে মসজিদে বাদ আছর সদ্য প্রয়াত আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ. এর রুহের মাগফিরাত কামনা করে এক দোয়া-মাহফিলের আয়ােজন করা হয়। এতে উপস্থিত হয়েছিলেন রংপুর জুম্মাপাড়া মাদরাসার মুহতামিম হাফেজ ইদ্রিস আলী ও নায়েবে মুহতামিম মাওলানা ইউনুস আলীসহ  রংপুরের শীর্ষস্থানীয় উলামা-মাশায়েখ ও ইমাম-খতিবগণ।


দোয়া মাহফিলে আলেমগণ বলেন, শাইখুল ইসলাম রহ. ছিলেন বাংলাদেশের কোটি জনতার হৃদয়ের স্পন্দন ও মুকুটিবিহীন সম্রাট। তিনি ছিলেন এদেশের সকল উলামায়ে কেরামের অভিভাবক এবং বাতিলের বিরুদ্ধে আপসহীন বীর সিপাহসালার। একাধারে হাদীস, তাফসির ও ফিকাহ শাস্ত্রসহ বিভিন্ন বিষয়ে পাণ্ডিত্য ছিল তাঁর অনন্য বৈশিষ্ট্য । এদেশে তাঁর অবদান অতুলনীয়। তিনি আওলাদে রাসুল আল্লামা হুসাইন আহমদ মাদানী রহ. এর একান্ত  শাগরিদ ও খলিফা ছিলেন।


তারা বলেন, আল্লামা আহমদ শফী রহ. প্রায় চার যুগ ধরে হাদীসের দরস দিয়ে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়েছে তাঁর লাখ লাখ ছাত্র-শাগরিদ। তিনি ছিলেন একাধারে চট্টগ্রামের আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক, কওমী মাদরাসা শিক্ষা বাের্ড  (বেফাক) ও  আল হাইয়াতুল উলয়া-লিল জামিয়াতিল কওমীয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান।


বক্তারা আরো বলেন, আল্লামা আহমদ শফী রহ. এর আহ্বানেই ২০১৩ সালে  বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ গণজমায়েত হয় ঢাকার শাপলা চত্তরে। সেসময় নাস্তিক্যবাদী সমাজের বিরুদ্ধে তাঁর এই আন্দোলন সাড়া ফেলেছিল গোটা পৃথিবীতে।

দোয়া মাহফিলের প্রধান অতিথি হাফেজ ইদ্রিস আলী বলেন, শাইখুল ইসলাম রহ. এর বিদায়ে বাংলাদেশে যে শূন্যতা সৃষ্টি হলো তা কোনদিনই পূরণ হবার নয়। আমরা উত্তরসূরী হিসেবে তাঁর রেখে যাওয়া মিশন বাস্তবায়নের সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাবো ইনশাআল্লাহ।


দোয়া-মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রংপুর জুম্মাপাড়া মাদরাসার শাইখুল হাদিস মুফতি জসিম উদ্দিন, জুম্মাপাড়া সদর জামে মসজিদের খতিব  মাওলানা মাহমুদুর রহমান, দারুল আমান মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা সাইফুল ইসলাম,  মাওলানা সাইফুল ইসলাম জিহাদী,  মাওলানা আবু সাঈদ,  কারী আতাউল হক, মাওলানা কাজী হামদুল্লাহ, মাওলানা হাবীবুল্লাহ, মাওলানা নিয়ামুল হক বিপ্লবী, হাফেজ আমজাদ হােসেন, মাওলানা জোবায়ের আহমদ ও হাফেজ জয়নাল আবেদীন প্রমুখ। 


দোয়া-মাহফিলে দোয়া পরিচালনা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও জুম্মাপাড়া মাদরাসার পরিচালক হাফেজ ইদ্রিস আলী। 

 

উল্লেখ্য, শাইখুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী গত ১৮ সেপ্টম্বর  শুক্রবার সন্ধ্যা ৬ টা২০ মিনেটে ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। পরদিন শনিবার বেলা ২টায় হাটহাজারী মাদরাসার মাঠে তাঁর জানাযা শেষে মাদরাসার প্রাতিষ্ঠানিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।


স্টাফ রিপোর্টার: কিছু অসাধু ব্যাবসায়ীর কারণে বাজার স্বাভাবিক থাকলেও  সবজির বাজারে মূল্য বৃদ্ধিতে হতাশ অনেক ক্রেতা। বাজারে অস্বাভাবিক দরপতন; মনিটরিংয়ে মাঠে নেই ভোক্তা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিভিন্ন এলাকায় বেশি সময় ধরে বন্যার কারণে সারাদেশে সবজির উৎপাদন নষ্ট হয়েছে। যার প্রভাবে বাজারে কিছু পণ্যের দাম বেড়েছে। রংপুরের বিভিন্ন বাজারে বিক্রি হওয়া আলু, পটল, বেগুন, বরবটি, ঢেঁড়স, ঝিঙা, করলা, কাচাকলা, লাউ, পেঁপেসহ প্রায় সব ধরনের সবজির মূল্য বেড়েছে। তবে চলতি সপ্তাহে মরিচের দাম কমেছে। 

নগরীর সিটি বাজার, ষ্টেশন, কামারপাড়া, সাতমাথা, মাহিগন্জ, মিস্ত্রীপাড়া, কামালকাছনা ও শাপলাসহ বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে মান ও বাজারভেদে বেগুন কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বরবটি কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৪৫ টাকা, পেঁপে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, করলা ৬০ টাকা, কচুর মুখী ৫০ টাকা, কাকরোল ৪৫ টাকা থেকে ৫০ টাকা, ঢেড়স ৫০ টাকা, দুধকুষি ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। আলুর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা।

গত সপ্তাহে কাঁচামরিচের কেজি ২০০ টাকা বিক্রি হলেও চলতি সপ্তাহে ১৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। সবজির মূল্য বৃদ্ধিতে অনেক ক্রেতা কেনাকাটার পরিমান কমিয়ে দিয়েছে। নুতন করে চলতি সপ্তাহে বিভন্ন প্রকার শাকের আটির মূল্য বেড়েছে। যেখানে কয়েক সপ্তাহ শাকের ২টি আটি ১৫ টাকা করে পাওয়া যেত সেখানে চলতি সপ্তাহে প্রতি আটি ১৫ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। দাম বৃদ্ধির জন্য বর্ষাকেই দুষছেন ব্যবসায়ীরা। বাজার করতে আসা কয়েকজন ক্রেতা জানান আসলে সবকিছুই কন্ট্রোলের বাইরে রয়েছে। করোনার সময় হাতের অবস্থাও ভালো নয়। এর সাথে পাল্লা দিয়ে দাম বাড়ছে। আমরা সাধারণ জনগনের নাভিশ্বাস উঠার উপক্রম।

জয়নাল আবেদীন: নীলফামারীর ডোমারে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের উদ্যোগে নদী ভাঙ্গন ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

বুধবার (৫আগষ্ট) বিকালে উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের ধনীপাড়া গ্রামে এ বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী। এ সময় হরিণচড়া ইউনিয়নের নদী ভাঙ্গন ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ১০টি পরিবারের মাঝে ৩ হাজার ৫শ টাকা করে মোট ৩৫ হাজার টাকা এবং ১৮ টি পরিবারের মাঝে ২ হাজার টাকা করে মোট ৩৬ হাজার টাকাসহ ১টি মসজিদে ১৪ হাজার টাকা বিতরণ করেন তিনি।

এ সময় রংপুর জেলা জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট ওয়ায়েজ মাও. মাহামুদুর রহমান, সংগঠক মুফতি আলহাজ্ব মাহমুদ বিন আলম, গোলাম আরশাদ, মাষ্টার তাজুল ইসলাম, যুব জমিয়ত ডোমার উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ন মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী ও তার ছোট ভাই আমেরিকা প্রবাসী ইঞ্জিনিয়ার জাহিদুল ইসলাম মুন।

এ ছাড়াও গত ঈদুল আযহার দিনে স্থানীয় ৩ শতাধীক গরীব ও দুস্থদের মাঝে কোরবানীর গোস্ত বিতরণের ব্যবস্থা করেন এবং ১৩টি ইউনিয়নে ১৩টি খাসি দলীয় কর্মীদের মাধ্যমে কোরবানী করিয়ে অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, মহামারী করোনার কারনে দোকান পাট বন্ধ হয়ে মানুষ যখন কর্মহীন হয়ে পড়েছে সে সময় ডোমার-ডিমলা এলাকায় ৫ দফায় প্রায় ৩ হাজার পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, তেল, চিনি , আটা ও লবনসহ অন্যান্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন বলে দলের মহাসচিব জানান।

হাঁড়িভাঙ্গা' নিয়ে দুশ্চিন্তায় ...
ডেস্ক: আজ থেকে বাজারে আসছে সুস্বাদু হাঁড়িভাঙা আম। করোনার কারণে এ আম পরিবহন হবে কীভাবে, এ নিয়ে বাগান মালিক ও মৌসুমি আম ব্যবসায়ীরা চিন্তিত রয়েছেন। কৃষি বিভাগ সরকারিভাবে এ আম বাজারজাতের  পরিকল্পনা করেছে। এ বছর ঝড়-বাদলে কিছুটা ক্ষতি হলেও ফলন ভালো হয়েছে। প্রতি বছর হাঁড়িভাঙা আম বিক্রি করে চাষিরা ২০০ কোটি টাকার ওপর ঘরে তোলেন। কিন্তু এবার করোনা পরিস্থিতি পরোক্ষভাবে হাঁড়িভাঙা আম চাষিদের স্বপ্নে আঘাত হেনেছে।

রংপুর কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এবার রংপুর জেলায় ৩ হাজার ৫ হেক্টর জমিতে আমের ফলন হয়েছে। এর মধ্যে হাঁড়িভাঙার ফলন হয়েছে ১ হাজার ৪৫০ হেক্টরে। গত বছর প্রতি হেক্টরে ফলন হয়েছিল ৯ দশমিক ৪ মেট্রিক টন। এবার আশা করা হচ্ছে গত বছরের চেয়ে ফলন বেশি হবে। সে হিসেবে শুধু হাঁড়িভাঙা উৎপাদন হতে পারে ১৫ হাজার মেট্রিক টনের ওপর।

মৌসুমের শুরুতে দাম কিছুটা কম থাকলেও প্রতি কেজি হাঁড়িভাঙা আম ৮০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি বিক্রি হয়। প্রতি হেক্টরে কমপক্ষে ২৫০টি গাছ ফলন দিতে পারে। এবার প্রতি গাছে গড়ে ৫ থেকে ৭ মণ করে আম ধরেছে বলে জানান আম চাষি শাহিনুল ইসলাম বকু। মিঠাপুকুরের সংসদ সদস্য এইচ এন আশিকুর রহমান হাঁড়িভাঙা আমের বাগান সম্প্রসারণ ঘটাতে তার নিবাঁচনী এলাকার ১৭ ইউনিয়নে ২ লাখের বেশি চারা বিনামূল্যে বিতরণ করেছেন।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের অতিরিক্ত পরিচালক মোহাম্মদ আলী জানান, হাঁড়িভাঙা আম যাতে চাষিরা ঠিকমতো বাজারজাত করতে পারেন এ নিয়ে একটি সভা হয়েছে। অনলাইন বুকিং, ডাকযোগে সেবাসহ আরও বেশকিছু সেবা দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

সাঈদীকে প্রধানমন্ত্রী দেখিয়ে কাল্পনিক 'মন্ত্রিসভা' গঠন, যুবক গ্রেপ্তার
প্রবচন ডেস্ক: পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে জামায়াত নেতা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীকে প্রধানমন্ত্রী করে কল্পিত মন্ত্রিসভার এক ছক তৈরি করে তা পোস্ট করায় আব্দুর রহিম (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার কল্পিত মন্ত্রিসভায় জামায়াত নেতা, ধর্মীয় আলোচক ও বিএনপি জোটের নেতারাও রয়েছেন। 

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তাকে গ্রেপ্তার করে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তার আব্দুর রহিমের বাড়ি দেবীগঞ্জ উপজেলার শালডাঙ্গা ইউনিয়নের সর্দারপাড়া এলাকায়। সে ওই এলাকার নায়েব আলীর ছেলে।

ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও দেবীগঞ্জ থানার এসআই আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ওই যুবক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জায়গায় জামায়াত নেতা দেলোয়ার হোসেই সাঈদী, ধর্মমন্ত্রীর জায়গায় মিজানুর রহমান আজহারী, অর্থমন্ত্রীর জায়গায় আন্দালিব রহমান পার্থসহ মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদে জামায়াত নেতাসহ তার মনগড়া নেতাদের নাম বসিয়ে কল্পিত মন্ত্রিসভার ছক এঁকে তা তার ফেসবুকের টাইমলাইনে শেয়ার করে। সেখানে ওই যুবক লেখে যে, এই ব্যক্তিরা যদি সরকার পরিচালনা করত তাহলে কতই না ভালো হতো।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পোস্ট দেয়ার পর পরই বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি পুলিশ অবহিত করেন। সোমবার গভীর রাতে দেবীগঞ্জ থানা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও জব্দ করা হয়। তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। মামলার বাদী দেবীগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই গোলজার হোসেন।

উল্লেখ্য, গত দু’দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন ব্যক্তি তাদের পছন্দের মানুষের ছবি দিয়ে ‘কল্পিত মন্ত্রিসভা’ এর ছক একে তা পোস্ট করছেন। বিষয়টি ফেসবুকে ভাইরাল হতে দেখা গিয়েছে। অনেকে জানিয়েছেন, ‘আমরা কেবল মজা করার জন্য এমনটি করেছি। এমন নয় যে, এর মাধ্যমে আমরা দেশের মন্ত্রিসভা নির্বাচন করছি।’

করোনার নমুনা সংগ্রহে অস্থায়ী ক্যাম্প পরিচালনা করছে রংপুর সিটি কর্পোরেশন
প্রবচন: রংপুরে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় সাধারণ মানুষের উৎসাহ বেড়েছে। তাই চাপ বেড়েছে সাধারণ মানুষের। রংপুর মহানগরীর সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে নভেল করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহে অস্থায়ী ক্যাম্প পরিচালনা শুরু করেছে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ।

সোমবার (১৫ জুন) নগরীর ইঞ্জিনিয়ারপাড়াস্থ বিদ্যালয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নভেল করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহে অস্থায়ী ক্যাম্পে নমুনা দিতে আসা মানুষের দীর্ঘ লাইন লক্ষ্য করা যায়। নমুনা সংগ্রহের প্রথম দিনে মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা সাধারণ মানুষ, ফায়ার সার্ভিসের সদস্যবৃন্দ নমুনা প্রদান করেন। আর এই নমুনা রংপুর সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের চুক্তিভিত্তিক ল্যাব টেকনিশিয়ান দিয়ে নমুনা গ্রহণ হচ্ছে।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা সাংবাদিকদের জানান, দেশের ১২টি সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে একমাত্র রংপুর সিটি কর্পোরেশন বাড়ি বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করছে। কিন্তু পরীক্ষায় বিলম্বের কারণে এ ভাইরাস দ্রুত নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ছড়াচ্ছে। রংপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রায় ১০লাখ মানুষের বসবাস। নগরবাসীর সুবিধার্থে একটি অস্থায়ী ক্যাম্প পরিচালনা করা হচ্ছে। নমুনা প্রদানে মানুষের আগ্রহ যেভাবে বেড়েছে, এতে কমপক্ষে আরো দু’তিনটি ক্যাম্প স্থাপন করা প্রয়োজন। সেই তুলনায় জনবল দক্ষ টেকনিশিয়ান রংপুর সিটি কর্পোরেশনে নেই। রেড জোন রংপুরের সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে আরো দু’টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাব স্থাপন করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য মন্ত্রীর প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কামরুজ্জামান তাজ জানান, রংপুর নগরীতে ভয়াবহ অবস্থা, কিন্তু আমরা অসহায়। আমাকে মাত্র ৪০ জনের নমুনা সংগ্রহ করার আদেশ দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে ২০টি পুরাতন রোগী এবং নতুন ২০টি রোগী।

করোনা প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক শিক্ষাবিদ ফখরুল আনাম বেঞ্জুসহ সাধারণ মানুষ রংপুর সিটি মেয়রের এ উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘ক্যাম্প স্থাপন করে নমুনা সংগ্রহ করার এই উদ্যোগ অত্যন্ত মহৎ কাজ। রংপুর মেডিকেল কলেজের পাশাপাশি সিটি কর্পোরেশনে নমুনা পরীক্ষার জন্য দুটি ল্যাব স্থাপন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget